শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭


যীশুর মা মরিয়ম


আমাদের অর্থনীতি :
25.12.2016

 

খ্রিস্টীয় দর্পণ ডেস্ক

কুমারী মরিয়ম ছিল ঈশ্বর নির্ভরশীল মেয়ে। তিনি গালিলের, নাসারত নামের ছোট একটি গ্রামে বাস করতো। তিনি অন্যদের মতই সাধারণ একটি মেয়ে। তিনি তার মাকে ঘরের কাজে সাহায্য করতেন এবং অন্য মেয়েদের সঙ্গে বাড়ীর জন্য জল আনতেন।

তার বিয়ের বয়স হল তখন তার বাবা-মা যোষেফ নামে একজন কাঠমিস্ত্রীর সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক করলেন। কিন্তু একদিন একটি আশ্চর্য ঘটনা ঘটল।

মরিয়ম সেদিন অন্যদিনের মতই ঘরের কাজে ব্যস্ত ছিল। তার মন তখন খুব আনন্দিত ছিল। তিনি যখন আপন মনে কাজ করছিলেন তখন একজন স্বর্গদূতকে দেখতে পেলেন। মরিয়ম কিছু বলবার আগেই দূত বললেন, ‘আমি গাব্রিয়েল। আমি ঈশ্বরের একজন সংবাদ বাহক দূত। ঈশ্বর আমাকে দিয়ে একটি খবর তোমার কাছে পাঠিয়েছেন।’

মরিয়ম যেন তার নিজের কানকে বিশ্বাস করতে পারছেন না। তিনি ভয় পেলেন এবং তিনি ভাবতে লাগলেন আমার কাছে দূত আসার মানে কি!

দূত বললেন, ‘ভয় করো না, ঈশ্বর তোমার বিষয়ে সবকিছু জানেন এবং তিনি তোমাকে ভালবাসেন। তিনি আমাকে তোমার কাছে এই কথা বলতে পাঠিয়েছেন যে, তিনি একটি বিশেষ উদ্দেশ্য তোমাকে বেছে নিয়েছেন। তুমি ঈশ্বরের প্রতিজ্ঞা-করা রাজার মা হবে। সেই সন্তানকে ঈশ্বরের পুত্র বলা হবে।’

মরিয়ম বললেন, ‘কিন্তু আমি তো কিছুই বুঝতে পারছি না। আমারতো এখনও বিয়ে হয়নি’ তার মাথায় অনেক প্রশ্ন।

দূত বললেন, ‘এই কাজটি ঈশ্বর করবেন। কোন কাজই ঈশ্বরের কাছে কঠিন নয়। তোমার আত্মীয়া ইলিশাবেতের কথা কি তোমার মনে আছে? সবাই মনে করেছিল যে তার কোন সন্তান হবে না। কিন্তু এখন সে একটি ছেলের জন্ম দিতে যাচ্ছে। দেখেছ, ঈশ্বরের কাছে কোন কিছুই অসাধ্য নয়।’ মরিয়ম যখন এই কথা শুনছিলেন তখন তার মনে হল যে ঈশ্বরের বাক্যের উপর তিনি নির্ভর করতে পারেন।

তিনি দূতকে বললেন, ‘ঈশ্বর যা চাইবেন, আমি তাই করব’।