শুক্রবার ২০ জানুয়ারী ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » সঠিক ব্যবস্থাপনার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের
    পেনশনের পুরো টাকা তুললে পেনশনধারীদের সুযোগ-সুবিধা বন্ধের ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর


সঠিক ব্যবস্থাপনার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের
পেনশনের পুরো টাকা তুললে পেনশনধারীদের সুযোগ-সুবিধা বন্ধের ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর


আমাদের অর্থনীতি :
12.01.2017

ফারুক আলম: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, যারা পেনশনের শতভাগ টাকা তুলে নিয়েছেন, তারা আর কোনো সুবিধা পাচ্ছেন না। চলতি বছরের ৩০ জুন বা তারপর অবসর-উত্তর ছুটি শেষ হবে তারাও এ নিয়মের আওতায় আসবেন। আগামী ১ জুলাই এ বিধান কার্যকর হবে। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় কমিটির বৈঠক শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পেনশন অবসরকালীন সময়ের সিকিউরিটি। যারা শতভাগ তুলেছে, তারা সবাই ডুবেছে। ভবিষ্যতে যাতে এটা না হয়, সেজন্য নতুন বিধানটি করেছি। তবে সর্বোচ্চ অর্ধেক পেনশনের টাকা তুলে নিতে পারবেন। বাকি অর্ধেক নিতে হবে মাসে মাসে। পেনশনার বা পারিবারিক পেনশনাররা মাসিক পেনশনের ওপর ৫ শতাংশ হারে বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট পাবেন। এটাও কার্যকর হবে আগামী ১ জুলাই থেকে।

অর্থমন্ত্রীর এ বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছে দেশের অর্থনীতিবিদরা। তাদের মতে, সিদ্ধান্ত সঠিক হয়েছে। তবে অবসর-উত্তর সেবা গ্রহিতাদের পেনসনের টাকা উত্তোলন করা না করা এবং পেনশনের সঠিক ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত

করতে একটি কর্তৃপক্ষ গঠনের প্রস্তাব করেন।

এ ব্যাপারে পিআরআই-এর নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, টাকা সন্তান-সন্তোতি বা পরিবার-পরিজনের চাপে বা লোভে পড়ে পেনশনের টাকা উত্তোলন করে খরচ বা কোথাও বিনিয়োগ করে। পরে এ টাকা ফেরত আসে না। কখনো বেহাতি হয়ে যায়। পেনশনের টাকা এনে অবসরকালীন সময়ে নিরাপদ জীবন-যাপন করবে। কিন্তু টাকা বেহাতি হয়ে যাওয়ার পর অবসর ভোগির নিরাপত্তার পরিবর্তে দুর্ভোগ বৃদ্ধি পায়। তাই সরকার পেনশনের টাকা দেওয়ার ক্ষেত্রে যে আইন চালু করতে যাচ্ছে তা সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত। তবে এই সব টাকা ব্যবস্থাপনার জন্য পেনশন বোর্ড গঠনের পরামর্শ দেন এই গবেষক। যদি অবসরে যাওয়ার পর ওই ব্যক্তি মৃত্যু হয় সেক্ষেত্রে ওই টাকা তার পরিবারের কাছে হস্তান্তরের সুযোগ রাখারও পরামর্শ দেন। পৃথিবীর অনেক দেশে এ নিয়ম চালু আছে বলেও তিনি জানান। পেনশনের টাকা তুলে নেওয়া না নেওয়ার ব্যাপারে পেনশন ভোগীর জন্য অপশন রাখার পরামর্শ দেন আরেক গবেষক ও অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জায়েদ বখত। তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য সঠিক। তবে এ ক্ষেত্রে অবসর ভোগীর ইচ্ছাকে সম্মান দেখানো উচিত। পেনশনের টাকা তুলে নেওয়া না নেওয়ার ব্যক্তি ভেদে ভিন্নতা ও প্রয়োজনের ভিন্নতা থাকতে পারে। অনেকের হয়তো টাকার প্রয়োজন হবে। অবসরে যাওয়ার পর তার টাকা পড়ে থাকার চেয়ে একসঙ্গে উত্তোলনে তার উপকার হবে বেশি। এদিকে বেসরকারি খাতে সারাদেশে পেনশন ব্যবস্থা চালুর চিন্তা-ভাবনাও করা হচ্ছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, তাদের ব্যাপারেও চিন্তা করছি কিন্তু সময় লাগবে। অবসর ভাতাভোগীদের জন্য কোম্পানিগুলোরও দায়বদ্ধতা আছে। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আগামী বাজেটের আগেই বসবো। সরকারি কর্মচারীরা এখন থেকে পেনশনের পুরো টাকা আর একবারে তুলে নিতে পারবেন না। গত মঙ্গলবার এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে অর্থ বিভাগ। পেনশনধারীদের আর্থিক ও সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করার স্বার্থে বিধানটি চালু করা হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়। সম্পাদনা: জাফর আহমদ