শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭


মোবাইল ব্যাংকিং পর্যবেক্ষণ জোরদারে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা


আমাদের অর্থনীতি :
12.01.2017

জাফর আহমদ: মোবাইল ব্যাংকিং-এ নজরদারি বাড়াতে উদ্যোগ নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এক্ষেত্রে প্রতিটি মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রমের পরিধি কমানোর পাশাপাশি পর্যবেক্ষণ জোরদার করা হবে। নতুন নির্দেশনা মোতাবেক একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে একটি মাত্র একাউন্টে লেনদেন করা যাবে। একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে একাধিক একাউন্ট থাকলে বাকিগুলো বাতিল করতে হবে।

মোবাইল ব্যাংকিং-এ সুযোগকে অপব্যবহার হচ্ছে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল বুধবার

সংশ্লিষ্ট বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহে প্রেরিত চিঠিতে এ কথা উল্লেখ করা হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, একই একাউন্টের বিপরীতে একাধিক মোবাইল একাউন্ট নম্বর থাকলে গ্রাহকের সঙ্গে আলাপ করে একটি রেখে বাকিগুলো বন্ধ করতে হবে। পাশাপাশি বন্ধ করা একাউন্টে কোনো টাকা থাকলে তার গ্রাহককে ফেরত দিতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী একটি একাউন্টে দিনে সর্বোচ্চ দুইবার ১৫ হাজার টাকা গ্রহণ করা যাবে। পাঠানোর ক্ষেত্রে দিনে দুই বারে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পাঠানো যাবে। মাসে সর্বোচ্চ ১০ বারে ৫০ হাজার টাকা পাঠানো যাবে। নতুন নির্দেশনায় মোবাইল একাউন্টে টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫,০০০ টাকা তোলা যাবে এবং এ টাকা উত্তোলন করা যাবে একাউন্টে ইন হওয়ার পর ২৪ ঘন্টার মধ্যে। নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়েছে, নগদ ৫,০০০ টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে গ্রাহক তার ন্যাশনাল আইডি কার্ড এর ফটোকপি জমা দিবে। মোবাইল ব্যাংকের এজেন্ট টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে প্রত্যেক গ্রাহকের কাছে থেকে হিসাব, স্বাক্ষর বা টিপসই সংরক্ষণ করবে। এজেন্টদের প্রতি নজরদারি বৃদ্ধির জন্যও নির্দেশনা দেওয়া হয় সংশ্লিষ্ট বাণিজ্যিক ব্যাংককে। যদি কোনো এজেন্ট এসব নিয়ম পরিপালনে ব্যর্থ হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও নির্দেশনা দেওয়া হয় বাংলাদেশ ব্যাংককে। টাকা গ্রহণ ও পাঠানোর প্রতিবেদন পরের  মাসের ৭ তারিখে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয় ওই নির্দেশনায়। সম্পাদনা: সাইদ রিপন