সোমবার ১ মে ২০১৭


জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনতে হবে


আমাদের অর্থনীতি :
16.02.2017

 

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম

বারবার প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছেÑ একজন শিক্ষক হিসেবে এমন অভিযোগ আমাদের শোনার কোনো কারণ নেই। উচিতও না, প্রয়োজনও নেই। এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী একেবারে  হতভম্ব হয়ে পড়ে। কারণ তারা এত ভালো প্রস্তুতি নেয় যে, প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার সংবাদ পেলে প্রথমে একজন শিক্ষার্থীর জন্য এটা একটা মানসিক আঘাত হিসেবে আসে। দ্বিতীয়ত, এটা একটা নৈতিক স্খলন। এসব ঘটনা আমাদের দেশের মতো একটা দেশের জন্য এটা গুরুতর সমস্যার সৃষ্টি করে। কারণ এটি সরাসরি দুর্নীতির সঙ্গে সম্পর্কিত। যদি শিক্ষার্থীদের জীবন নিয়ে দুর্নীতিবাজরা এ রকম কা- করে থাকেন তাহলে সেটা কোনোক্রমেই গ্রহণযোগ্য না। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, এ ঘটনায় জড়িতরা ধরা পড়বে। এমন কথা আমরা এর আগেও অনেক শুনেছি, কিন্তু জনসম্মুখে দেখি না কারা এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িত। ছবিসহ দেখলাম কয়জন ধরা পড়েছে কিন্তু এরা প্রকৃতই কতখানি জড়িত বা আসামি আর এদের পিছনে কারা আছে, আমরা কিন্তু তা জানি না।

আমার একটা অনুরোধ থাকবে শিক্ষামন্ত্রী ও সরকারের প্রতিÑ ঘটনার সঙ্গে জড়িত যে বা যারাই ধরা পড়েছে তাদের কাছ থেকে যেভাবেই হোক যারা এর পেছনে সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের নামগুলো আদায় করতে হবে। এক্ষেত্রে পুলিশকে অত্যন্ত কঠোর একটা ভূমিকায় যেতে হবে এবং অপরাধী যত শক্তিশালীই হোক তাদের ধরে জনসম্মুখে হাজির করতে হবে, যাতে এটি একটা উদাহরণ হয়ে থাকে। আর আগামীতে যেন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করার সাহস কেউ না পায়।

আমরা আর এমন ঘটনা দেখতে চাই না। শুনতে চাই না। যারাই এসব অপরাধের সঙ্গে জড়িত তাদের প্রত্যেককে ধরে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।

পরিচিতি: শিক্ষাবিদ ও কথাসাহিত্যিক

মতামত গ্রহণ: তানভীন ফাহাদ

সম্পাদনা: আশিক রহমান