মঙ্গলবার ২৪ অক্টোবর ২০১৭


১ বিলিয়ন ডলার  ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বিশ্বব্যাংককে : ১৪ দলের বৈঠকে নাসিম


আমাদের অর্থনীতি :
16.02.2017

 

আল হেলাল শুভ: দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগের কারণে পদ্মা সেতু প্রকল্পে নির্মাণকাজ বিলম্বিত হওয়ায় বিশ্বব্যাংকের কাছে এক বিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪-দলীয় জোট। গতকাল বুধবার জোটের বৈঠক শেষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে জোটের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ দাবি করেন। আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

১৪ দলের মুখপাত্র নাসিম ক্ষতিপূরণ দাবি করে বলেন, পদ্মা সেতু থেকে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে অর্থায়ন ফিরিয়ে নেওয়ার কারণে কাজের বিলম্বসহ অনেক ক্ষতি হয়েছে। এই কাজের ক্ষতিপূরণ বাবদ এক বিলিয়ন ডলার মঞ্জুরি হিসেবে আমাদের দিতে হবে।

বিশ্বব্যাংকের কাছে মিথ্যা অভিযোগের জবাব জানতে চেয়ে তিনি আরও বলেন, তিন বছর আগে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়ন বন্ধ করে দেওয়ায় জাতির কাছে আমরা অসম্মানিত হয়েছিলাম, সারাবিশ্বের কাছে আমাদের ছোট করা হয়েছিল। তৎকালীন সময়ে করা অভিযোগ এখন কানাডার আদালতে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। আমরা বিশ্বব্যাংকের তৎকালীন সিদ্ধান্তকে নিন্দা জানাই। আমরা এখন তাদের জবাব জানতে চাই।

নাসিম অভিযোগ করে বলেন, এই ষড়যন্ত্রের নাটের গুরু ড. মুহাম্মদ ইউনূস। ইউনূস একটি পক্ষকে খুশি করে নোবেল পুরস্কার নিয়েছেন। আর এই পুরস্কারের প্রভাব খাটিয়ে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছেন। একটা চক্রকে সঙ্গে নিয়ে তিনি দেশের উন্নয়নের অন্যতম নজির পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজকে বাধাগ্রস্ত করেন। তাই আমরা স্পিকারের কাছে আবেদন করেছি, তাকে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় ডেকে জবাবদিহি করা হোক। আমরা মনে করি, ইউনূসসহ সব ষড়যন্ত্রকারীর বিষয়ে দেশের জনগণের জানার অবকাশ আছে।

মোহাম্মদ বলেন, পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, পদ্মা সেতুর কাজে তিল পরিমাণ দুর্নীতি নেই। তারপরও প্রধানমন্ত্রী, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, তথা বাংলাদেশকে হেয় করা হয়েছে। আজ অনেক বাধা অতিক্রম করে প্রমাণিত হয়েছে, পদ্মা সেতু নির্মাণকাজে কোনো দুর্নীতি হয়নি। তাই ১৪ দল মনে করে, এসব ষড়যন্ত্রকারী ছাড়া পেতে পারেন না। তাদের জনগণের সামনে দাঁড় করাতে হবে।

এই ইস্যুতে যারা হেয় হয়েছেন, মন্ত্রিত্ব হারিয়েছেন, এই রায়ের পর তাদের মন্ত্রিত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হোকÑ সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজ্জার এমন দাবিকে কীভাবে দেখছেনÑ সাংবদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, তার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়াসহ ১৪ দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সম্পাদনা: নাশরাত আর্শিয়ানা চৌধুরী