সোমবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৭


জাকার্তার গভর্নর নির্বাচনে সহনশীলতার পরিচয় দিলেন মুসলিমরা


আমাদের অর্থনীতি :
16.02.2017

কামরুল আহসান : জাকার্তার গভর্নর নির্বাচনে প্রথম পর্যায়ের ভোটে এগিয়ে আছেন বাসুকি পুরনামা। তিনি পেয়েছেন ৪৩ শতাংশ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাসওয়েদেন পেয়েছেন ৩৯ শতাংশ ভোট। তৃতীয় প্রতিদ্বন্দ্বী ইয়োধুয়ানো পেয়েছেন মাত্র ১৭ শতাংশ ভোট। এটা ব্যক্তিগত ভোট গণনার ফলপ্রকাশ। সরকারিভাবে এখনো ফল প্রকাশ করা হয়নি। গভর্নর নির্বাচন হওয়ার জন্য একজন প্রার্থীর ৫০ শতাংশ ভোট নিশ্চিত হতে হবে।

তবে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে কোনোরকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি তাতেই সন্তুষ্ট ইন্দোনেশিয়ার সরকার। কারণ এ নির্বাচনের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বর্তমান গভর্নর বাসুকি পুরনামা। তিনি খ্রিস্টান ধর্মের অনুসারি। কোরআন অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত। কয়েকটি কট্টোরপন্থির ইসলামিক দল তার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছিল।

তাদের দাবি ছিল, কোনো মুসলমানের পক্ষে একজন বিধর্মীর নেতৃত্ব মেনে নেওয়া ইমানের বরখেলাফ। এটা ছিল ইন্দোনেশিয়ার মুসলমানদের সহনশীলতার একটা পরীক্ষা। শেষ পর্যন্ত বাসুকি তার দায়িত্বের জন্যই পুরস্কৃত হলেন। ইন্দোনেশিয়ার মুসলমানরা রক্ষণশীলতা নয়, পরিচয় দিলেন সহনশীলতারই। ভিন্ন ধর্মাবলম্বী দেখে নয়, একজন দায়িত্বশীল নেতা হিসেবেই প্রথম ধাপের নির্বাচনে বাসুকি পুরনামাকে এগিয়ে রাখলেন তারা।

তবে এ নির্বাচনের আসল ফলাফল প্রকাশ হবে আগামী এপ্রিলে। এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হবে গভর্নর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপ। সে পর্যন্ত একটা উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করবে  ইন্দোনেশিয়া জুড়ে। আসলে এ উত্তেজনা গড়াবে ২০১৯ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পর্যন্তই। কারণ, গভর্নর নির্বাচন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রক্সি।  আরব নিউজ, সম্পাদনা: এম রবিউল্লাহ

কামরুল আহসান : জাকার্তার গভর্নর নির্বাচনে প্রথম পর্যায়ের ভোটে এগিয়ে আছেন বাসুকি পুরনামা। তিনি পেয়েছেন ৪৩ শতাংশ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাসওয়েদেন পেয়েছেন ৩৯ শতাংশ ভোট। তৃতীয় প্রতিদ্বন্দ্বী ইয়োধুয়ানো পেয়েছেন মাত্র ১৭ শতাংশ ভোট। এটা ব্যক্তিগত ভোট গণনার ফলপ্রকাশ। সরকারিভাবে এখনো ফল প্রকাশ করা হয়নি। গভর্নর নির্বাচন হওয়ার জন্য একজন প্রার্থীর ৫০ শতাংশ ভোট নিশ্চিত হতে হবে।

তবে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে কোনোরকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি তাতেই সন্তুষ্ট ইন্দোনেশিয়ার সরকার। কারণ এ নির্বাচনের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বর্তমান গভর্নর বাসুকি পুরনামা। তিনি খ্রিস্টান ধর্মের অনুসারি। কোরআন অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত। কয়েকটি কট্টোরপন্থির ইসলামিক দল তার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছিল।

তাদের দাবি ছিল, কোনো মুসলমানের পক্ষে একজন বিধর্মীর নেতৃত্ব মেনে নেওয়া ইমানের বরখেলাফ। এটা ছিল ইন্দোনেশিয়ার মুসলমানদের সহনশীলতার একটা পরীক্ষা। শেষ পর্যন্ত বাসুকি তার দায়িত্বের জন্যই পুরস্কৃত হলেন। ইন্দোনেশিয়ার মুসলমানরা রক্ষণশীলতা নয়, পরিচয় দিলেন সহনশীলতারই। ভিন্ন ধর্মাবলম্বী দেখে নয়, একজন দায়িত্বশীল নেতা হিসেবেই প্রথম ধাপের নির্বাচনে বাসুকি পুরনামাকে এগিয়ে রাখলেন তারা।

তবে এ নির্বাচনের আসল ফলাফল প্রকাশ হবে আগামী এপ্রিলে। এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হবে গভর্নর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপ। সে পর্যন্ত একটা উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করবে  ইন্দোনেশিয়া জুড়ে। আসলে এ উত্তেজনা গড়াবে ২০১৯ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পর্যন্তই। কারণ, গভর্নর নির্বাচন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রক্সি।  আরব নিউজ, সম্পাদনা: এম রবিউল্লাহ