শনিবার ২৭ মে ২০১৭


১ বছর ৮ মাসে ১৯৬টি দেশ ঘুরে বিশ্বজয় করলেন ২৭ বছরের ক্যাসেন্দ্রা দে পিকোল


আমাদের অর্থনীতি :
17.02.2017

 

ডেস্ক রিপোর্ট: ইচ্ছা থাকলে মানুষ কী না করতে পারে! ইচ্ছা ছিল সব থেকে কম সময়ে বিশ্বের সবক’টি দেশ ঘুরে বিশ্ব রেকর্ড গড়বেন। আর যেমন ভাবা, ঠিক তেমনই কাজ। বয়স মাত্র ২৭। একজন নারী। আর এই বয়সেই তিনি রীতিমতো বিশ্বে হইচই ফেলে দিয়েছেন। মাত্র ২৭ বছর বয়সে বিশ্বের ১৯৬টি দেশ ঘুরে ফেললেন ক্যাসেন্দ্রা দে পিকোল। আর তার এই বিশ্বপরিক্রমা করতে সময় লেগেছে দু’বছররেও কম। এবেলা

আমেরিকার ক্যাসেন্দ্রা দে পিকোল। নারী হলেও তার অদম্য জেদই তাকে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছে দিয়েছে। বিশ্বের প্রতিটা দেশে পড়েছে তার পদধূলি। শুরুটা করেছিলেন ২০১৫-এর জুলাইতে। আর ২০১৭-এর ফেব্রুয়ারির মধ্যেই গোটা বিশ্ব চষে ফেলেছেন তিনি। কিন্তু এই অসম্ভবকে কীভাবে সম্ভব করলেন পিকোল? কীভাবে এত কম বয়সে, এত অল্প সময়ের মধ্যে ঘুরে ফেললেন এতগুলি দেশ? পিকোল জানিয়েছেন, ইচ্ছা আর চেষ্টা, এই দুটোই সমস্ত অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলেছে। পাশাপাশি, তিনি ‘ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর পিস থ্রু ট্যুরিজম’-এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবেও কাজ করছেন।

‘ট্রাভেল অ্যান্ড লেসার’-এর রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে, প্রতিটি দেশেই তিনি ২-৫ দিন করে কাটিয়েছেন। ৫০টির বেশি দেশে তিনি বৃক্ষরোপণও করেছেন। এই ভ্রমণের জন্য তাকে মোট ২৫৫টি বিমানে চাপতে হয়েছে।

সব মিলিয়ে তার মোট খরচ হয়েছে ২ লাখ ২০ হাজার ডলারের কাছাকাছি। যদিও পুরো টাকাটাই দিয়েছেন স্পনসররা। পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে থাকার জায়গা খুঁজতে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞাপনও দিয়েছেন।

বিগত ১ বছর ৮ মাস ধরে তার অধিকাংশ সময়ই কেটেছে কাধে ক্যামেরার ব্যাগ আর হাতে বিশ্বের ম্যাপ নিয়ে। ফেব্রুয়ারিতে শেষ হয়েছে তার যাত্রা। সেই সঙ্গে বিশ্বজয়ের মুকুটও উঠেছে তার মাথায়। নাম লিখিয়েছেন ‘গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস’-এও। শুধুমাত্র বিশ্বজয় নয়, বিশ্বে প্রথম কোনো মহিলা হিসেবে সব থেকে কম সময়ে বিশ্বের প্রতিটি সার্বভৌম দেশ ঘুরে নেওয়ার খেতাব অর্জন করে ফেলেছেন ক্যাসেন্দ্রা দে পিকোল। সম্পাদনা: মাসুম মুনাওয়ার