মঙ্গল্বার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৭


অন্যের আগুন  নিভাতে গিয়ে পুড়লো উত্তমের পেট


আমাদের অর্থনীতি :
17.02.2017

 

রিকু আমির : যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সাধ্যমতন কাজ শুরু করেছিলেন পেশায় চর্মকার উত্তম ঋষি, সে আগুনেই ঘটনাস্থলে পুড়ে গেল তার উপার্জনের সরঞ্জামগুলো। উত্তমের ভাষায়, ‘স্যার, আমার পেটটাই পুইরা গেছে গা’।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে গ্রীন রোডস্থ ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির বিপরীত পাশে অবস্থিত নির্মাণাধীন একটি নয় তলা ভবনের আগুন লাগে। প্রধান সড়কের উত্তর-দক্ষিণমূখী ভবনটির সম্মুখভাগের সর্ব উপর তলা থেকে নিচতলা ও একদম উত্তর থেকে একদম দক্ষিণ পর্যন্ত চট দিয়ে ঢাকা ছিল।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হয়ে সর্বপ্রথম ঘটনাস্থলে উপস্থিত কলাবাগান থানার এসআই মোস্তাফিজুর রহমান দৈনিক আমাদের অর্থনীতিকে বলেন, উত্তর দিক থেকেই আগুন ছড়াতে দেখি।

ভবনটির সীমান প্রাচীর ঘেঁষা ফুটপাথেই চর্মকার উত্তমের কাজ করতেন। আগুন লাগার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আমাদের সময় ডটকম সেখানে উপস্থিত হয়। তখনই দেখা যায়, উত্তম কাজ করছিলেন, দৌঁড়াচ্ছিলেন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে। কিন্তু সরঞ্জামসহ তার বাক্স যে আগুন খেয়ে ফেলছে, সেদিকে তার কোনো খেয়ালই ছিল না। কিছুক্ষণ পর উত্তম যখন টের পেলেন, তখন আর কিছুই করার ছিল না। আগুন লাগার অতি অল্প সময়ের মধ্যে যখন ফায়ার সার্ভিস এর চারটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়, তখন ছিটানো পানিতেও উত্তমের কিছু অক্ষত মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়ে।

এখন কী করবেন- এমন প্রশ্নে উত্তম ক্ষীণ স্বরে বলেন, কী করুম, বুঝতাসি না স্যার। আমি গেলাম আগুন নিভাইতে, আগুন আমারেই খাইলো।

হবিগঞ্জ জালশুকা গ্রামের বাসিন্দা উত্তম দীর্ঘ ১০ বছর ধরে এখানে চর্মকারের কাজ করে অন্ন যোগাতেন। উত্তম তার স্ত্রী শিপ্রা ও দুই মেয়েকে নিয়ে হাজারীবাগে একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। তার বড় মেয়ে সাঞ্জিত (৫), ছোট মেয়ে সাইনির বয়স দেড় বছরের মতন।

মাসিক ১৮০০ টাকা ভাড়া দেবার পাশপাশি দৈনিক সংসারের খরচ ৬০০ টাকা বলে আমাদের সময় ডটকমকে জানান উত্তম। ক্ষতির পরিমাণ জানতে চাইলে উত্তম বলেন, আজকা মাইনষের ধারে হাত পাইতা বাজারের টেকা যোগাইতে হইব। সকালে আইসা ২০-৫০ টেকার মতন বনি করছিলাম মাত্র। বাক্স, মালপত্র যা গেছে, সবজুরাইতে চার হাজার টেকার মতন লাগব।

টাকা পয়সা জামানো হয় কি-না- প্রশ্নে তিনি বলেন, সবই খাওন পিন্দনের নিচে যায়গা, জমামু কেমনে। কবে মালপত্র কিন্না কাম শুরু করুম বুসতাসি না। বি.দ্র. কেউ যদি উত্তম ঋষিকে কোনো ধরণের সহযোগিতা করতে আগ্রহী হন, তাহলে যোগাযোগ করতে পারেন ০১৬৭০১০৫৩১১ নম্বরে। উত্তম মোবাইল ফোন ব্যবহার করে না বলে তার নম্বর দেয়া সম্ভব হয়নি।