বুধবার ২৩ অগাস্ট ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » খেলা » ‘এশিয়ায় সম্মানজনক স্থানে যাবে বাংলাদেশের মহিলা ফুটবল’


‘এশিয়ায় সম্মানজনক স্থানে যাবে বাংলাদেশের মহিলা ফুটবল’


আমাদের অর্থনীতি :
20.04.2017

 

এল আর বাদল : বাংলাদেশ মহিলা দল এশিয়ান ফুটবলে একটি সম্মানজনক স্থানে পৌঁছাবে, সেদিন বেশি দূরে নয়। আন্তর্জাতিক পরমি-লে পুরুষ দল থেকে মহিলা ফুটবল দল বর্তমানে অনেক বেশি এগিয়ে। দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ মহিলা দলের পাফরমেন্স দেখে জাপান দলের কোচ ও কর্মকর্তারাও অভিভূত হয়েছেন। সুতরাং লাল-সবুজের এই দলটি এশিয়ান ফুটবলেও চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াতে পারে।  মহিলা ফুটবল নিয়ে গতকাল এ মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাহী সদস্য ও মহিলা ফুটবলের দলনেতা জাকির হোসেন চৌধুরী। তিনি বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকে ধন্যবাদন জানিয়ে বলেন, ওনার (সালাউদ্দিন) মতো একজন ফুটবল কিংবদন্তী বাফুফের দায়িত্বে থাকার কারণেই মহিলা ফুটবলের উত্তোরোত্তর উন্নতি। পাশাপাশি পুরুষ ফুটবলের মান বৃদ্ধিতে নানা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। দেশি – বিদেশি কোচের অধীনে পুরুষ আর মহিলা ফুটবলের প্রশিক্ষণ চলছে। মহিলা ফুটবলের চেয়ারম্যান মাহফুজা আখতার কিরন শত ব্যস্ততার মাঝেও দলের জন্য নিরলশ পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

জাকির চৌধুরী আরো বলেন, ফুটবল সব সময়ই আমার প্রিয় খেলা। মহিলা ফুটবলের দলনেতা হয়ে আরো বেশি রোমাঞ্চিত। দল যাতে ভালো পারফরম করে, সেটা নিয়েই আমাকে সব সময় ভাবতে হয়। দলের অনুশীলন থেকে শুরু করে ঘরোয়া ম্যাচগুলো মাঠে গিয়ে প্রত্যক্ষ করি। গত বছর (২০১৬) ঢাকায় অনুষ্ঠিত মহিলা এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশীপে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়ে চূড়ান্ত পর্বে উঠে বাংলাদেশ ফুটবলের উন্নতির জানান দিয়েছে। বাফুফের এই নির্বাহী সদস্য বলেন, বাংলাদেশের এই অনূর্ধ্ব-১৬ দলটি কতোটা তেজদীপ্ত, সেটার প্রমাণ পাওয়া গেছে ভারতে শিলিগুড়িতে অনুষ্ঠিত মহিলা সাফ চ্যাম্পিয়নশীপে। ওই আসরে সব দেশের জাতীয় দল অংশ নিলেও বাংলাদেশ খেলেছে জাতীয় দলের পোশাকে অনূর্ধ্ব-১৬ দল। ভারতেও আমরা তাদের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত পারফরম করে ফাইনালে হেরে রানার্সআপ হয়েছি। ওই সফরে আমি ছিলাম বাংলাদেশ দলের দলনেতা। জাকির চৌধুরী বলেন, কিছুদিন আগে জাপানে এএফসির একটি টুর্নামেন্টে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা দল দুর্দান্ত পারফরম করে সবাইকে অবাক করে দেয়। সাতটি ম্যাচ খেলে ৫টি জয়, ১টি ড্র আর ১টিতে পরাজিত হয় বাংলাদেশ। খেলার পর জাপান ফুটবল একাডেমির কোচ আমাদের মেয়েদের খেলা দেখে যার পরনাই প্রশংসা করেছেন এবং কৃষ্ণা রানী, স্বপ্না ও মার্জিয়ার পারফরমেন্স দেখে রীতিমত সন্দেহ করেছেন, এরা বাংলাদেশের খেলোয়াড় কীনা।

আগামী সেপ্টেম্বরে ব্যাংককে অনুষ্ঠিত হবে এএফসি মহিলা ফুটবলের (অনূর্ধ্ব-১৬) ফাইনাল রাউন্ড। সেখানে বাংলাদেশ, চীন, জাপান, কোরিয়া, মালয়েশিয়া, নেপালসহ ১০টি দল অংশ নিবে। চূড়ান্ত পর্বে বাংলাদেশ ভালো খেলে এশিয়ায় জায়গা কওে নিতে পারবে বলে মনে করেন বাফুফের এই নির্বাহী সদস্য।

তিনি বলেন, বাফুফে সভাপতির তত্বাবধানে মহিলা দলের নিবির পরিচর্যা চলছে। বাফুফে ভবনের আবাসিক হলে থাকা ২৩ ফুটবলাররের অনুশীলনের পাশাপশি স্কুলের লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ারও সুযোগ রাখা হয়েছে। চারজন স্কুল শিক্ষক সপ্তাহে তিন দিন বাফুফে ভবনে এসে মেয়েদের ক্লাস নিয়ে যান। এভাবেই মেয়েদের গড়ে তোলার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বাফুফে।