বুধবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭


তিন জেলায় বজ্রপাতে নিহত ৬


আমাদের অর্থনীতি :
21.04.2017

মুরাদ হাসান:  বৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে বজ্রপাতে  তিন জেলায় নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। গত বুধবার বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ, শেরপুর ও সিরাজগঞ্জে পৃথক বজ্রপাতে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ।

শাফায়েত নাজমুল  কিশোরগঞ্জ থেকে জানান, কিশোরগঞ্জের হাওরের ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় পৃথক বজ্রপাতে নারীসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন-ইটনাতে মানিক মিয়া (৩৫), অষ্টগ্রামে রিফাত মিয়া (৩০) ও মিঠামইনে সুলেমা খাতুন (৫০)। বুধবার বিকেল ৩টার দিকে ইটনা উপজেলার থানেশ্বর হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে মারা যান মানিক মিয়া।

ইটনা থানার ওসি আব্দুল মালেক এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার বিকাল ৪টার দিকে মিঠামইন  উপজেলার বড়কান্দা হাওরে ছেলেকে আনতে যান সুলেমা খাতুন। এসময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। মিঠামইন থানার এএসআই রমিজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার বিকাল একই সময়ে অষ্টগ্রাম উপজেলার হাওরের কেউডার এলাকায় নিজ জমিতে থান কাটতে যান রিফাত। এসময় বজ্রপাতে মৃত্যু হয় তার ।

সিরাজগঞ্জ থেকে রেজাউল করিম জানান  -সিরাজগঞ্জের বেলকুচি ও উল্লাপাড়াতে বজ্রপাতে বৃদ্ধসহ দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে। গত বুধবার রাতে বেলকুচি উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া পিরারচর ও উল্লাপাড়া উপজেলার লাহেড়ী মোহনপুর ইউনিয়নের সুজাগ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতেরা হলেন বেলকুচি উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া ইউপির পিরারচর গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের স্ত্রী ফেরদৌসী খাতুন (৪৫) ও উল্লাপাড়া উপজেলার লাহিড়ী মোহনপুর ইউনিয়নের সুজাগ্রামের গোলবার হোসেনের স্ত্রী জয়নব বেওয়া (৭০)। বেলকুচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, রাতে ঝড়-বৃষ্টির সময় গৃহবধু ফেরদৌসী খাতুন গরু রাখতে গোয়াল ঘরে যায়।