রবিবার ২৩ জুলাই ২০১৭


পুলিশের সঙ্গে ম্যাটস শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষে আহত ২১


আমাদের অর্থনীতি :
19.05.2017

সুজন কৈরী : চার দফা দাবিতে রাজধানীতে আন্দোলনরত মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুলের (ম্যাটস) শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের কয়েকদফা সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশ কনস্টেবলসহ ২১ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা শাহবাগ থেকে টিএসসি পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে এ আন্দোলন করে। এ সময় তারা কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করলে শিক্ষার্থীরা পিছু হঠে। পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পুরো শাহবাগ এলাকায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।   উচ্চশিক্ষাসহ চার দফা দাবিতে বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা মেডিকেল স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন নামে ম্যাটস শিক্ষার্থীদের এই সংগঠন গত ২৬ এপ্রিল থেকে আন্দোলন করছে। তাদের অন্য দাবিগুলো হলো- মেডিকেল এডুকেশন বোর্ড অব বাংলাদেশ নামে আলাদা বোর্ড গঠন, সরকারি বেসরকারি কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও শিক্ষানবিশকালীন চিকিৎসকদের ভাতা প্রদান।

পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুসারে শিক্ষার্থীরা গতকাল সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কর্মসূচি পালন করেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিক্ষার্থীদের একটি দল স্মারকলিপি দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে রওনা দেয়। শাহবাগে পুলিশ বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে এক নারী পুলিশ সদস্য আহত হন। এরপর শিক্ষার্থীরা বাধা পেরিয়ে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান থেকে গরম পানি ছোড়ে। শিক্ষার্থীরা এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বারডেম হাসপাতালের সামনে বেশ কয়েকটি বাস, মাইক্রোবাস ও ট্যাক্সি ক্যাব ভাঙচুর করেন। এ সময় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পুলিশ আটক করে।

ঢামেক হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, পুলিশের টিয়ার গ্যাসে রাকিব হাসান, নাইম, মুরাদ, রিয়াদ লোহান, কাইসার, আরিফুল, মিলন, হেলাল, মুরাদ, সোনিয়া ও দুই কনস্টেবলসহ অন্তত ২১ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে ঢামেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের মধ্যে মিলন, হেলাল ও  মুরাদকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সম্পাদনা-হুমায়ুন কবির খোকন