রবিবার ২৫ জুন ২০১৭


 ফের পাহাড় ধসের আশঙ্কায় রাঙামাটি


আমাদের অর্থনীতি :
19.06.2017

 

এম.নাজিম উদ্দিন, রাঙামাটি :  আবারো পাহাড় ধসের আশঙ্কায় রাঙামাটি। বৃষ্টির কারণে বেশ কিছু পাহাড়ে ফাটল দেখা দিয়েছে। বর্ষা মৌসুমে আরো বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে এসব ফাটল থেকে ধস নামতে পারে। এসব পাহাড়ের বেশকিছু স্থানে ঘর-বাড়ি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া পর্যটন শহর রাঙামাটির তিন দিনের মধ্যে চট্টগ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপিত হবে  বলে জানিয়েছেন সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের প্রধান। এদিকে খাগড়াছড়ি শহরের বিভিন্ন পাড়া-গ্রামে ও বিভিন্ন উপজেলায় পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাসকারীদের নিরাপদ ¯’ানে সরিয়ে নেওয়া অব্যাহত রেখেছে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন। খাগড়াছড়ি জেলা সদরের একটি আশ্রয় কেন্দ্রের পাশাপাশি মানিকছড়ি উপজেলায়ও খোলা হয়েছে একটি আশ্রয় কেন্দ্র। ইতোমধ্যে সেখানে ঝুঁকিতে বসবাসকারী বেশ কিছু পরিবারকে জেলার একাধিক আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানে খাবারসহ অন্যান্য সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে। রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে,ডিসি বাংলো,পুলিশ সুপারের বাংলো, বিএফডিসি রেস্ট হাউস,রাঙামাটি সার্কিট হাউস,বাংলাদেশ বেতার ভবন,আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস,বাংলাদেশ টেলিভিশন রাঙামাটি উপকেন্দ্রের স্থাপনাসমূহের জায়গায় বিশাল অংশজুড়ে ব্যাপক পাহাড় ধস হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে আরো বৃষ্টি হলে এসব এলাকায় আরো পাহাড় ধসের আশঙ্কা রয়েছে। এ ছাড়া পাহাড়ের বেশকিছু স্থানে আরো অসংখ্য বাড়ি-ঘর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। রাঙামাটি শহরের পর্যটন সড়ক, আনন্দ বিহার, পুরাতন হাসপাতাল, রিজার্ভ বাজার উন্নয়ন বোর্ড,সমাজ সেবা অফিস,রাজবাড়ি শিল্পকলা একাডেমি,কল্যাণপুর, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট, ভেদভেদী আনসার ক্যাম্প,বেতার কেন্দ্র, শিমুলতলী,ভেদভদী যুব উন্নয়ন প্রশিণ কেন্দ্র,মনোঘর এলাকায় সড়কের বিশাল অংশ জুড়ে রাস্তার পার ধবসে গিয়ে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কিছু কিছু অংশে রাস্তা থেকে মাটির স্তুপ পড়ে সরিয়ে নেওয়ার কাজ চলছে।