মঙ্গলবার ২৪ অক্টোবর ২০১৭


স্বপ্নের মধ্যদিয়ে ঈশ্বর সান্ত¡না দিলেন


আমাদের অর্থনীতি :
30.07.2017

খ্রিস্টীয় দর্পণ ডেষ্ক

এষৌ যখন জানলেন যে তিনি তার আশীর্বাদ হারিয়েছেন তখন তিনি খুব রাগ করলেন। তিনি বললেন, ‘আমার বাবার মৃত্যুর পরপরই আমি যাকোবকে খুন করব’। রিবিকা যখন একথা শুনলেন তখন তিনি যাকোবকে বললেন, ‘বাবা, সময় থাকতে এষৌর চোখের সামনে থেকে পালাও, বাড়ি থেকে চলে যাও। সে যখন অনেক দিন তোমাকে দেখবে না, তখন তার রাগ দূর হবে’।

যাকোব বাড়ি ছেড়ে চলে গেলেন, একাকি চলে গেলেন সুদূর হারণে। এক সন্ধ্যায় তিনি রাত যাপন কয়ার জন্য থামলেন ও পাথরের অপরে মাথা রেখে ঘুমিয়ে পরলেন। সেই রাত তিনি একটা অদ্ভুত স্বপ্ন দেখলেন। তিনি দেখলেন, পৃথিবী থেকে একটা সিঁড়ি আকাশ পর্যন্ত উঠে গেছে, সেই সিঁড়ি দিয়ে স্বর্গদূতেরা নিচে নামছেন আর উপরে উঠছেন। সিঁড়ির মাথায় তিনি দেখলেন, প্রভু দাড়িয়ে আছেন। প্রভু যাকোবকে বললেন, ‘ যে জমিতে তুমি আছো তা তোমাকে এবং তোমার পরে তোমার বংশধরদের দেওয়া হবে। আমি তোমার যতœ নেব, এবং তোমাকে এই জমিতে ফিরিয়ে আনব’। সকালবেলা যাকোব জেগে উঠলেন ও বললেন, ‘ঈশ্বর এই জায়গায় আছেন, আর আমি তা জানতাম না। আমি ভেবেছিলাম আমি একা। এই জায়গা হল ঈশ্বরের ঘর, এ হল স্বর্গের গেট। যে পাথর বালিশ হিসেবে ব্যবহার করেছিলেন তা দিয়ে তিনি একটি থাম বানালেন’। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য তিনি তার উপর তেল ঢেলে দিলেন। তারপর তিনি আবারও চলতে শুরু করলেন, আর যেতে যেতে হারণ শহরের একটা কুয়ার কাছে আসলেন। যখন তিনি কুয়ার কাছে বসে অপেক্ষা করছিলেন, তখন রাহেল নামে একটি মেয়ের দেখা পেলেন, সে তার আপন মামাত বোন ছিল। তিনি এত খুশি হয়েছিলেন যে আনন্দে কান্না করেছিলেন।