শনিবার ১৯ অগাস্ট ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » লিড ২ » ৬০টি প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায়
    কর্মজীবী নারীদের আবাসন সংকট


৬০টি প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায়
কর্মজীবী নারীদের আবাসন সংকট


আমাদের অর্থনীতি :
13.08.2017

 

জান্নাতুল ফেরদৌস পান্না : রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে কর্মজীবী নারীদের আবাসন সঙ্কট বেড়েই চলেছে। অথচ কর্মজীবী নারীরা দেশের অর্থনীতিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছেন। এছাড়া বিগত কয়েক বছরের তুলনায় কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বেড়েছে। সেইসঙ্গে আবার বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়ে কর্মক্ষেত্র থেকে নারীর একাংশ ঝরে পড়তেও দেখা যাচ্ছে।

কর্মজীবী প্রতিবন্ধকতার মধ্যে অন্যতম নারীর আবাসন সঙ্কট। নারীর নিরাপদ আবাসন সঙ্কটের সমস্যা শুধু রাজধানীতেই নয়, দেশের বিভিন্ন বিভাগ, জেলা, উপজেলাগুলোতেও। সরকার আবাসন সঙ্কট মোকাবিলায় ৬০টি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মহিলা হোস্টেলের আসন আরও ২ হাজার ৪৭৫টি বাড়ানোর কাজ চলছে।

সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাবিনা ইয়াছমিন খান মুন্নি এ প্রতিবেদককে জানান, কর্মজীবী হোস্টেলের সঙ্গে শিশুদের জন্য ডে-কেয়ার করাটা অত্যন্ত জরুরি। বড় বড় কোম্পানিগুলোকে সরকার ডে-কেয়ার তৈরিতে উৎসাহিত করতে হবে। তবেই কর্মক্ষেত্রে মেয়েদের অংশগ্রহণ আরও বেশি করে বাড়বে এবং তা দেশের অর্থনীতিতে বড় ভূমিকা পালন করবে। কর্মজীবী নারীর জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হোস্টেলের সংখ্যা মাত্র ৭টি। এসব হোস্টেলে মোট আসনের বিপরীতে শুধুমাত্র রাজধানীতেই কর্মজীবী নারীর সংখ্যা কয়েক হাজার গুণ বেশি। আর এ কারণে কর্মজীবী নারীদের জন্য দেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলায় পর্যায়ক্রমে মহিলা হোস্টেল নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে ২০টি প্রকল্প পাস হয়েছে।

কর্মজীবী মহিলাদের নিরাপদ আবাসন সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে মহিলাবিষয়ক অধিদফতর স্ব-অর্থায়নে সারাদেশে ৭টি কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল পরিচালনা করে আসছে। রাজধানী ঢাকা শহরে ৪টি এবং খুলনা, যশোর, রাজশাহী ও চট্টগ্রামে ১টি করে মোট ৮টি হোস্টেলের মাধ্যমে কর্মজীবী নারীদের নিরাপদ আবাসন সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এতে ১ হাজার ৬০৮ কর্মজীবী নারী আবাসন সুবিধা পাচ্ছেন।

মহিলাবিষয়ক অধিদফতর থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে, গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলায় ১৩০ আসন বিশিষ্ট এবং মিরপুর ও খিলগাঁও হোস্টেলে ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণের মাধ্যমে ৫৫৮ আসনের কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল নির্মাণের কার্যক্রম চলছে। ইতোমধ্যেই সাভারের বড় আশুলিয়ায় কর্মরত নারী গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য ৭৪৪ সিটের হোস্টেল নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এখন সেখানে ভর্তির কাজ চলছে। সাভারের আশুলিয়ায় গার্মেন্টসে কর্মরত নারী শ্রমিকদের জন্য ৭৯৮ আসনের হোস্টেল নির্মাণ হচ্ছে। ঢাকার নীলক্ষেতে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল সংলগ্ন নতুন ১০তলা ভবনে ২৪৫ আসনের হোস্টেল নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া শেরপুর জেলাধীন নালিতাবাড়ী উপজেলায় ৫০ শয্যাবিশিষ্ট কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল কাম ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণের কাজ এবং ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনে নার্সেস হোস্টেল নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। অন্যদিকে গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলায় কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল সংক্রান্ত প্রকল্পটি অনুমোদিত হয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় ৬তলা ফাউন্ডেশনের ওপর হোস্টেল ভবন নির্মাণ করা হবে। হোস্টেলে ১৩০ কর্মজীবী মহিলা নিরাপদ আবাসিক সুবিধা পাবেন এবং একই ভবনে ২০ কর্মজীবী মায়ের শিশুর জন্য ডে-কেয়ার সেন্টারের ব্যবস্থা থাকবে। সম্পাদনা : গিয়াস উদ্দিন আহমেদ