বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭


মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রি এবং …


আমাদের অর্থনীতি :
13.09.2017

 

 

মে. জে. সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক (অব.)

 

বাংলাদেশের একজন সচেতন নাগরিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনের একজন কর্মী হিসেবে আমি পৃথিবীর সকল গণতন্ত্রমনা সরকারের নিকট আবেদন করছি যে, ব্যবসায়িক স্বাধীনতা এবং নৈতিকতার মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করা প্রয়োজন। মিয়ানমারের নিকট যে অস্ত্র বিক্রি করা হচ্ছে, সেই অস্ত্র নিরীহ জনগণের উপর ব্যবহার করা হচ্ছে। এই মুহূর্তে মিয়ানমারের সঙ্গে প্রতিবেশী কোনো রাষ্ট্রের সামরিক সংঘর্ষ নেই।

তথা কোনো যুদ্ধাবস্থা বিরাজমান নয়। কিন্তু মিয়ানমার সরকার তার রাজ্যের অভ্যন্তরে বিভিন্ন ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে একটি অঘোষিত যুদ্ধ পরিচালনা করছে। অন্তত একটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নাম আমরা বলতেই পারি, তথা মিয়ানমারের দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থিত রাখাইন প্রদেশের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। মিয়ানমার সরকার তাদের বিরুদ্ধে অঘোষিত যুদ্ধ পরিচালনা করছে, গণহত্যা পরিচালনা করছে। অতএব, সেখানে যে সকল দেশ তাদের অস্ত্র বিক্রি করছেন, যে সকল দেশ তাদের সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন, তাদের ওপরে এই মানবতাবিরোধী কর্মের দায়ভার অবশ্যই বর্তায়।

আমরা বাংলাদেশি জনগণ, দুনিয়ার যারাই মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি করছেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন, তাদের এই অবস্থানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। বাংলাদেশ শান্তিকামী, গণতন্ত্রমনা দেশ। আমরা সকল প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে চাই। কিন্তু মানবতার ডাকেও আমরা সাড়া দিব। আমরা আশা করি গণতন্ত্রমনা বিশ্ব আমাদের সঙ্গে একমত হবে।

পরিচিতি: চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি

মতামত গ্রহণ: সাগর গনি

সম্পাদনা: আশিক রহমান ও মোহাম্মদ আবদুল অদুদ