রবিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭


এমসিকিউ পদ্ধতি একেবারে উঠিয়ে দেওয়া উচিত


আমাদের অর্থনীতি :
13.09.2017

 

Ñ শিক্ষা সচিব

তরিকুল ইসলাম সুমন : পরীক্ষায় বহুনির্বাচনি প্রশ্ন বা মাল্টিপল-চয়েস কোয়েশ্চেন (এমসিকিউ) পদ্ধতি একেবারে উঠিয়ে দেওয়া উচিত। কারণ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান শিক্ষকদের কনভিন্স করে শিক্ষার্থীদের ত্রিশ নম্বর পেতে সাহায্য করেন বলে জানিয়েছন শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন। পাশাপাশি তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহের মন্ত্রিসভায় শিক্ষা আইনের খসড়া উত্থাপন করা হতে পারে।

গতকাল সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে পাঠ্যপুস্তক পরিমার্জন টিম কর্তৃক নবম-দশম শ্রেণির বিজ্ঞানের ৬টি বইয়ের পরিমার্জিত সংস্করণ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষা সচিব বলেন, এমসিকিউ পরীক্ষায় অনেক শিক্ষার্থী ভুল উত্তর দিচ্ছেন। এমনও ঘটেছে, সবগুলো বিষয়ে একজন ৮০ শতাংশ নম্বর পেলেও একটা বিষয়ের এমসিকিউতে সাত/আট নম্বর পেয়েছে। সেখানে ১০ পাওয়ার বাধ্যবাধকতা আছে। রাজউক কলেজের ১০ জন ছাত্র একটি বিষয়ের এমসিকিউতে ৭/৮ পেয়ে ফেল করেছে। তবে ছাত্রদের অভিযোগ, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক তাদের খাতা নিয়ে গেছে। তবে নিশ্চয়ই কোনো কারণ ছিল। তা না হলে খাতা নিয়ে গেল কেন? এরপরেও ঢাকা বোর্ডকে বিষয়টি তদন্ত করতে বলেছি। তারা কি ৩০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে, নাকি ১০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে।

শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন বলেন, প্রায় ছয় বছর ধরে নতুন শিক্ষা আইন নিয়ে কাজ চলছে। আইনের অভাবে আমরা অনেক কিছু করতে পারি না। তবে আগামী সপ্তাহে আইনটি মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য তোলা হতে পারে। সম্পাদনা : হাসিবুল ফারুক চৌধুরী