রবিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭


আরও ধনী হচ্ছে বিশ্বের সম্পদশালী পরিবারগুলো


আমাদের অর্থনীতি :
14.09.2017

বণিকবার্তা : গত বছর শেয়ারবাজারের উত্থানে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ধনী পরিবারগুলো আরো বেশি সম্পদশালী হয়েছে। প্রতি চারটি পরিবারের মধ্যে তিনটি পরিবার ছিল এ সৌভাগ্যের ভাগীদার। শেয়ারবাজারে লোকসান গুনতে হয়েছে হাতেগোনা মাত্র কয়েকটি ধনী পরিবারকে। ক্যাম্পডেন ওয়েলথ এবং সুইস ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক ইউবিএসের একটি প্রতিবেদন বলছে, গত বছর বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মাত্র ৪ শতাংশ ধনী পরিবারের সম্পত্তি কমতে দেখা গেছে। অন্যদিকে শেয়ারবাজারের উত্থান এবং বিভিন্ন বেসরকারি ইকুইটি চুক্তিতে অর্থলগ্নিই ছিল ধনী পরিবারগুলোর আরো বেশি ধনী হওয়ার পেছনের রহস্য। খবর গার্ডিয়ান। মঙ্গলবার প্রকাশিত গবেষণায় দেখা যায়, ২০১৬ সালে ২৬২টির মধ্যে মাত্র ১০টি পরিবারের সম্পত্তি কমেছে। আর তিন-চতুর্থাংশ পরিবারের (যাদের গড় সম্পদ ১৪৫ কোটি ডলার) সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে। এছাড়া ২২ শতাংশ পরিবারের অর্জিত সম্পদে কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের দেয়া তথ্যানুযায়ী, ফ্যামিলি অফিস থেকে ধনী পরিবারগুলোর গড় মুনাফা পৌঁছেছে ৭ শতাংশে। এ বিষয়ে ক্যাম্পডেন ওয়েলথের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডমিনিক স্যামুয়েলসন বলেন, ২০১৬ সালে ধনী পরিবারগুলোর লক্ষণীয় অবস্থান নিয়ে প্রশ্নের কোনো সুযোগ নেই। অর্থনৈতিকভাবে নানা চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও বিশ্বজুড়ে বিপুল পরিমাণ সম্পদের প্রবাহ পরিলক্ষিত হয়েছে। উল্লেখ্য, ফ্যামিলি অফিস বলতে ধনী ব্যক্তিদের সম্পদ ব্যবস্থাপনা-বিষয়ক পরামর্শ প্রতিষ্ঠানগুলোকে বোঝানো হয়েছে।

উনিশ শতকের শেষ দিকে মার্কিন রকফেলাররাই প্রথমত ফ্যামিলি অফিসের প্রচলন করেন। তাদের কথা উল্লেখ করে স্যামুয়েলসন বলেন, ২০১৫ সালে ফ্যামিলি অফিস থেকে গড় মুনাফা ছিল দশমিক ৩ শতাংশ। গোটা আর্থিক বাজারের তখন টালমাটাল অবস্থা। সেই অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটে ফ্যামিলি অফিসগুলোর। চাঙ্গা ইকুইটি বাজার এবং বিভিন্ন চুক্তির সুবাদে ২০১৬ সালে ফ্যামিলি অফিসগুলো শক্তিশালী প্রবৃদ্ধিতে ছিল।’ সম্পাদনা : ইমরুল শাহেদ