বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭


রোহিঙ্গা ইস্যুতে আনান কমিশন বাস্তবায়নে কমিটি গঠন করেছে  মিয়ানমার


আমাদের অর্থনীতি :
14.09.2017

 

উম্মুল ওয়ারা সুইটি : রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের জন্য অবশেষে একটি কমিটি গঠন করেছে মিয়ানমার। এই কমিটি রোহিঙ্গা এলাকাগুলোতে এই কমিটি নিরাপত্তা ব্যবস্থা উন্নত করা, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও রোহিঙ্গা অধ্যূষিত অঞ্চলে সামাজিক সম্পর্কের বিষয়ে কাজ করবে। পাশাপাশি তারা জাতিগত সংখ্যালঘু বসবাসকারীদের গ্রাম এবং উচ্ছেদ হওয়া মানুষদের শিবিরে স্থিতিশীলতা বজায় রাখার কাজ করবে। মিয়ানমারের  প্রেসিডেন্টের দফতর থেকে গত মঙ্গলবার একটি বিবৃতি দেয়া হয়েছে।  আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এপির রিপোর্টে আরো বলা হয়, ‘ইমপ্লিমেন্টেশন কমিটি অব রাখাইন এডভাইজরি কমিটি’ নামে ১৫ সদস্যের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত আগস্টে কফি আনানের নেতৃত্বাধীন রাখাইন কমিশন রাখাইনের পরিস্থিতি তদন্তের পর কিছু সুপারিশ হাজির করে।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি তদন্তে গতবছর জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের নেতৃত্বে একটি কমিশন গঠন করা হয়। মিয়ানমারের ডি ফ্যাক্টো সরকারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি নিজেই কফি আনানকে ওই কমিশনের প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেন। এর আগেও সু চি তার কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করেছিলেন।

কফি আনানের নেতৃত্বাধীন কমিশনের প্রতিবেদনে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব নিশ্চিত করার জন্য মিয়ানমার সরকারকে আহ্বান জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যদি স্থানীয় জনগণের বৈধ অভিযোগগুলো উপেক্ষা করা হয়, তবে তারা জঙ্গি সংগঠনগুলোতে যোগ দেওয়ার দিকে ঝুঁকে পড়বে। কমিশনের সুপারিশে বলা হয়েছিল, ‘যাদের নাগরিকত্ব মঞ্জুর করা হয়নি তাদের মর্যাদা কী হবে তাও সরকারকে স্পষ্ট করতে হবে। আর যাদের নাগরিকত্ব যাচাই করা হয়ে গেছে, তাদের জন্য নাগরিকত্বের সব সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।’

মিয়ানমার আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিলেও রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ব্যাপারে পুরনো নাগরিকত্ব আইনকেই প্রধান করার কথা জানিয়েছে। সম্পাদনা : গিয়াস উদ্দিন আহমেদ