বুধবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » আইনের কড়া সমালোচনায় খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ
    মালিকরা কম শিক্ষিত বলে ব্যাংককে মুদির দোকান মনে করেন


আইনের কড়া সমালোচনায় খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ
মালিকরা কম শিক্ষিত বলে ব্যাংককে মুদির দোকান মনে করেন


আমাদের অর্থনীতি :
13.10.2017

জাফর আহমদ : এক ব্যাংকে একই পরিবারের ৪ জন পরিচালক-এমন আইনের কড়া সমালোচনা করে এ আইনের বিরুদ্ধে ব্যাংকের পেশাজীবিদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ। তিনি বলেন, যে হারে ব্যাংকের সংখ্যা বাড়ছে তাতে ব্যাংক মুদির দোকান হবে। এবং যে কোনো সময় যে কোনো ব্যাংক বন্ধ হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বিআইবিএম আয়োজিত সেমিনারে তিনি একথা বলেন। বিআইবিএম এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. তৌফিক আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী। প্যানেল আলোচক ছিলেন, সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ, বিআইবিএম এর সুপারনিউমেরারি প্রফেসর হেলাল আহমেদ চৌধুরী ও মো. ইয়াসিন আলী।

খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেন, এক ব্যাংকে একই পরিবারের ৪ জন হলে পেশাদারদের সমস্যায় পড়তে হবে। সংসদ সদস্যদের হৈ চৈ এর কারণে জাতীয় সংসদে ভ্যাট আইন ও ব্যাংকে টাকা রাখা থেকে কেটে রাখার বিল স্থগিত হয়েছিল। এ ঘটনার উদহারণ টেনে তিনি ব্যাংকের পরিচালক সম্পর্কিত আইনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য ব্যাংকের পেশাদারদের আহ্বান জানান। এ আইনের বিরুদ্ধে তিনি বড় ধরনের সেমিনারেরও আয়োজন করবেন বলে উল্লেখ করেন। কেন্দ্রিয় ব্যাংক ও বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের ইয়ং কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে এই সাবেক ডেপুটি গভর্নর বলেন, আমার সময় শেষ হয়ে গেছে কিন্তু আপনারা যারা কর্মরত আছেন এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান।

রাষ্ট্রায়ত্ব বাণিজ্যিক ব্যাংক বিডিবিএল ব্যাংককে ‘বড় দুর্বল’ ব্যাংক বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ব দুই দুর্বল ব্যাংক একত্র হয়ে একটি বড় দুর্বল ব্যাংক সৃষ্টি হয়েছে। বিদেশে বড় বড় প্রতিষ্ঠান একত্রে আরও বড় হয়। কিন্তু বাংলাদেশে দুর্বল ব্যাংক একত্রে আরও দুর্বল ব্যাংক সৃষ্টি হয়। সবল ব্যাংকের সঙ্গে দুর্বল ব্যাংক একিভুত হওয়ার ক্ষেত্রে বাঁধ সাধে দুর্বল ব্যাংকগুলোর দুর্বল স্বকীয়তা।

ব্যাংকিং খাতের ৮০ ভাগ সমস্যা রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের কারণে সৃষ্টি বলে মন্তব্য করেন সুপারনিউমেরারি প্রফেসর মো. ইয়াসিন আলী। রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বন্ধ হলে এসব সমস্যা দূর হবে। রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকে সর্বোচ্চ খেলাপি ঋণ। যদি খেলাপি ঋণ কমানো না যায় তাহলে বেসরকারি খাতে রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকের ঋণ বিতরণ বন্ধ করে দেওয়ার আহ্বান জানান এই প্রবীণ ব্যাংকার। এক ব্যাংকে একই পরিবারের ৪ জন পরিচালক নিয়োগ সম্পর্কিত আইন সরকারের সদিচ্ছার অভাব বলেও মনে করেন তিনি। সম্পাদনা : মোহাম্মদ রকিব হোসেন